fbpx
28.5 C
Barisāl
Monday, April 12, 2021

ঐতিহ্যবাহী টরকী বন্দরের বেহাল দশা।

নিজস্ব প্রতিবেদক: আনুমানিক প্রায় দুইশত বৎসর পুরাতন ঐতিহ্যবাহী টরকী বন্দরের পরিস্থিতি ইদানিংকালে ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। দক্ষিন অঞ্চলের সবচাইতে বড় এবং বিখ্যাত বন্দর হিসেবে আখ্যায়িত টরকী বন্দরের রয়েছে নিজস্ব লঞ্চ টার্মিনাল, রয়েছে অটো চালের মিল, আছে সকল ধরনের ফ্যাক্টরী, কারখানা, মাছের এবং পানের বিশাল আরৎ।

এখানে সপ্তাহে মঙ্গল এবং শুক্রবার দুই হাটবারে প্রায় প্রতিদিন চল্লিশ থেকে পঞ্চাশ হাজার মানুষের আগমন এবং লেনদেন হয়ে থাকে। রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ব্যাংকের সকল ধরনের ব্যাকিং সুবিধা ও বিভিন্ন এন. জি. ও। এখানকার কশবা গরুর হাট হিসেবে পরিচিত হাটকে দক্ষিন অঞ্চলের সবচাইতে বড় গরুর হাট হিসেবে গন্য করা হয়। এখানকার বেকারী এবং কলকারখানাগুলোর খাদ্যদ্রব্য স্থানীয় ভোক্তাদের চাহিদা পূরন করে পুরো দক্ষিন অঞ্চল সহ দেশের অন্যান্য যায়গায় সরবরাহ করা হয়।

বরিশাল জেলা ও দক্ষিন অঞ্চলের অর্থনীতিতে বিরাট ভূমিকা পালন করা স্বত্তেও স্থানীয় সরকার ও প্রসাশনের নেই কোন ভূমিকা বা আগ্রহ। এখানকার রাস্থাঘাট ও চলাচলে মানুষের পোহাতে হয় চরম দূর্ভোগ। বর্ষাকালে সঠিক পানি নিষ্কাসন ব্যাবস্থা না থাকার কারনে হাঁটু পরিমান পানি পেরিয়ে যাতায়াত করতে হয়। ক্ষমতাবান বেক্তীদের অপরিকল্পিত ও অবৈধ বাসস্থান এবং দোকানের ফলে রাস্তা-ঘাটের প্রসস্থতা কমে যাচ্ছে। যানবাহন চলাচলে মানুষের ভোগান্তীর শেষ নেই। রাস্তা-ঘাটের প্রসস্থতা কমে যাওয়ার দরুন জরুরী সময়ে মুমূর্ষ রোগী যাতায়াতের জন্য এ্যাম্বুলেন্স ঢোকানো বা বের করা সম্ভব হয় না। প্রতি বৎসর অপরিকল্পিত আবাসন ও দোকানপাটের কারনে দুই থেকে একবার গড়ে আগুন লেগে থাকে। এসময় প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়ে থাকে কিন্তু রাস্তাঘাটের বেহাল অবস্থার দরুন অগ্নীনির্বাপক কর্মীদের যথাযথ সময়ে পৌছানো সম্ভব হয় না। রয়েছে অনেক অসাধু ব্যাবসায়ীদের অসামাজিক ও নিন্দনীয় কার্যকলাপ।

স্থানীয় প্রসাশনের কিছু অসৎ শ্রেনীর কারনে অসাধু ব্যাবসায়ীরা নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারে বন্দরের অর্থনীতিতে খারাপ প্রভাব ফেলছে। অব্যাবসায়ী বিভিন্ন পেশার অস্থায়ী মানুষদেরকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করা হচ্ছে। লঞ্চ, ষ্টীমার, ট্রলার সহ বিভিন্ন প্রকার যানবাহনে রয়েছে অপরিকল্পিত চাঁদা যে কারনে কমে যাচ্ছে পরিবহন ব্যাবস্থা। রয়েছে গাঁজা, ইয়াবা, ফেন্সীডিল, মদ ইত্যাদির রমরমা ব্যাবসা যা ক্ষমতাবান ব্যাক্তিবর্গ ও প্রসাশন ছত্রছায়া দিয়ে থাকেন। যুবসমাজ বিশেষ করে ব্যাবসায়ী ও বিত্তশ্রেনীদের ছেলে-মেয়েরা নেশাগ্রস্থ হয়ে পড়ছে এবং বিভিন্ন কূকর্মে লিপ্ত হচেছ। এভাবে চলতে থাকলে অচিরেই টরকী বন্দরের খ্যাতি ও অর্থনীতি দুইটিরই অবসান এবং অচল হয়ে পড়বে।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ