fbpx
26.1 C
Barisāl
Monday, May 10, 2021

গৌরনদীতে অপহরণ করে সাত দিন আটকে রেখে ধর্ষন মামলা দায়ের গ্রেপ্তার তিন

বরিশালের গৌরনদীতে অপহরণ করে ৭দিন আটকে রেখে এক স্কুলছাত্রীকে (১৩) ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপাওে পার্শ্ববর্তী মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার মহরউদ্দির চর গ্রামের ভিকটিমের (নির্যাতিতার) মা বাদি হয়ে ৫ জনকে আসামি করে শুক্রবার গৌরনদী থানায় একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মামলার প্রধান আসামি উজিরপুর উপজেলা সদরের রাজমিস্ত্রি আঃ রহমান ওরফে পলাশ হাওলাদার (২৫), তার সহোদর ভাই মিজানুর হাওলাদার (২৩), ভগ্নিপতি মোবারক শিকদার (৩১)কে গ্রেফতার করেছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও গৌরনদী থানার এসআই আরিফুল ইসলাম মামলার বরাত দিয়ে জানান, গত ২ রমজান মোবাইল ফোনের মিস কলের মাধ্যমে উজিরপুর উপজেলা সদরের মৃত-শামচুল হক হাওলাদারের ছেলে রাজমিস্ত্রি আঃ রহমান ওরফে পলাশ হাওলাদারের সঙ্গে কালকিনি উপজেলার কালাই সরদারের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীর (১৩) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমিক পলাশ হাওলাদার তার প্রেমিকার সাথে দেখা করার জন্য গত ১২ জুন দুপুরে মোবাইল ফোনে প্রেমিকাকে গৌরনদী বাসস্ট্যান্ডে ডেকে আনেন। গৌরনদী বাসস্ট্যান্ড থেকে ওইদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পলাশ হাওলাদারের নেতৃত্বে ২ সহযোগী জোরপূর্বক ওই স্কুলছাত্রীকে একটি ইজিবাইকে তুলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর ওই স্কুল ছাত্রীকে বিভিন্ন স্থানে আটকে রেখে ধর্ষণ করে পলাশ। অপহৃতার স্বজনরা খোঁজখবর নিয়ে উজিরপুর থানায় অভিযোগ করলে উজিরপুর থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে উজিরপুরে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত পলাশ হাওলাদার (২৫), তার সহোদর ভাই মিজানুর হাওলাদার (২৩), ভগ্নিপতি মোবারক শিকদারকে (৩১) আটক করে কালকিনি থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন। কালকিনি থানা পুলিশ ঘটনাস্থল (পিও) গৌরনদী থানা এলাকায় হওয়ায় উদ্ধারকৃত স্কুলছাত্রীকে ও আটককৃত ওই ৩ জনকে গৌরনদী থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। কালকিনি উপজেলার মহরউদ্দির চর গ্রামের ভিকটিমের (নির্যাতিতার) মা বাদি হয়ে ৫ জনকে আসামি করেন। ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ধর্ষিতাকে শনিবার দুপুরে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয়ার জন্য বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বরিশাল অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালতের বিচারক তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করেন বলে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আরিফুল ইসলাম জানান।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ