fbpx
21.2 C
Barisāl
Tuesday, December 7, 2021

গৌরনদীর ৫ উপজেলায় ভয়াবহ লোডশেডিং

গরমে ঘণঘণ বিদ্যুৎ বিভ্রাটে পল্লী বিদ্যুৎ বরিশালের গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া
জোনাল অফিস একং উজিরপুর সাব-জোনাল অফিসের আওতায় ১ লাখ ২৫ সহস্রাধিক গ্রাহক
অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ না পাওয়ায় এ লোডশেডিং দিতে হচ্ছে বলে গৌরনদী
জোনাল অফিস দাবি করছে। এতে স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের
শিক্ষার্থীরা চরম বিপাকে পড়েছেন। এছাড়াও বিদ্যুৎ চালিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও
যানবাহনের অবস্থাও নাজুক হয়ে পড়েছে। ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের কারণে গ্রাহকদের
মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

কয়েকজন বিদ্যৎ গ্রাহক জানান, গত এক সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন ২৪ ঘন্টার মধ্যে
একটানা ১ ঘন্টাও বিদ্যুতের সেবা পাচ্ছেন না গ্রাহকেরা। টানা ৩/৪ ঘন্টার
ঘণঘণ লোডশেডিংয়ে পল্লী বিদ্যুৎ গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া জোনাল অফিস এবং উজিরপুর
সাব-জোনাল অফিসের আওতায় লক্ষাধিক গ্রাহককে অতিষ্ঠ করে তুলেছে। সন্ধ্যা থেকে
গভীর রাত পর্যন্ত লোডশেডিং থাকায় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া চরম ভাবে ব্যাহত
হচ্ছে।

গৌরনদী উপজেলার গ্রাহক ব্যবসায়ী বিভাষ মন্ডল, জীবন বিশ্বাস, সোহরাব
সরদার অভিযোগ করেন, অফিসের কতিপয় কর্মকর্তারা বিভিন্ন অজুহাতে অথবা
যান্ত্রিক ত্রুটির খোড়া অযুহাত দেখিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা শেবিলাডশেডিং সৃষ্টি
করে জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন।

তারা বলেন, গৌরনদীতে বিদ্যুৎ যায়না মাঝে মাঝে আসে, ফলে সরকারের উন্নয়ন ও বিদ্যুৎ উৎপাদনের সফলতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন গৌরনদীবাসী।

একাধিক গ্রাহক জানায়, গত এক সপ্তাহ ধরে গৌরনদী, আগৈলঝাড়া, উজিরপুর
উপজেলার সম্পূর্ণ এলাকা এবং বাবুগঞ্জ ও মুলাদী উপজেলার একাংশ এলাকায় ভয়াবহ
শোডশেডিংয়ে গ্রাহকরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। রোববার ও শনিবার রাতেও একাধিকবার
লোডশেডিংয়ের কবলে পড়তে হয়েছে ওইসব এলাকার বিদ্যুৎ গ্রাহকদের। এছাড়াও আকাশে
মেঘ দেখলেই ও সামান্য বাতাস বয়লেই এসব উপজেলায় বিদ্যুতের লোডশেডিং শুরু হয়ে
যায়।

এ ব্যাপারে পল্লী বিদ্যুতের গৌরনদী জোনাল অফিসের ডিজিএম একেএম ফজলুল হক
বলেন, গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া জোনাল অফিস এবং উজিরপুর সাব-জোনাল অফিসের আওতায়
প্রতিদিন ৩৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ চাহিদা রয়েছে। গত এক সপ্তাহ ধরে গৌরনদী
ফিডারে ১৪-১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করে আসছে মোস্তফাপুর গ্রীড
সাব-ষ্টেশন থেকে।

যান্ত্রিক ক্রটি কিংবা লাইনের সমস্যা হলে বিদ্যুৎ সরবরাহতো বন্ধ রাখতেই
হবে। গত ১ মে কালবৈশাখি ঝড়ে ভৈরবে ২৩০ কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের ১টি
টাওয়ার ভেঙ্গে পড়ার পর থেকেই পূর্বাঞ্চল থেকে পশ্চিমাঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহ
কম থাকায় বরিশাল বিভাগে লোডশেডিং অব্যাহত রয়েছে।

খুব শীঘ্রই সব সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে বলে ডিজিএম ফজলুল হক জানান।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ