fbpx
31.4 C
Barisāl
Sunday, September 26, 2021

কালকিনিতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর নির্যাতনকারীদের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ

বাল্য বিয়ে মেনে না নেয়ায় মাদারীপুরের কালকিনিতে শুকতারা আক্তার-(১৬) নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে প্রথমে নির্যাতন শেষে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। এঘটনার প্রতিবাদে ও নির্যাতনকারীদের দৃষ্টান্তমুলক বিচারের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকালে মানববন্ধন করেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ মানববন্ধন কর্মসুচিতে প্রথমে থানা পুলিশ বাধা প্রদান করে। পরে শিক্ষার্থীরা তা উপেক্ষা করে সহপার্টির নির্যাতনকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিলে ফেটে পরেন। এছাড়া বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা এ মিছিল নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস ঘেরাও করেন। শুকতারা কালকিনি পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এবারের এসএসসি পরীক্ষার্থী।
ভুক্তভোগীর পরিবার সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার সাহেবরামপুর এলাকার সাহেবরাপুর গ্রামের সালাম আকনের বড় ছেলে ইটালী প্রবাসী রোমনের (৩০) সাথে পাঙ্গাশিয়া গ্রামের মোফাজ্জেল হাওলাদারের মেয়ে শুকতারা আক্তারকে না জানিয়ে গোপনে বিয়ে ঠিক করেন পরিবারের লোকজন। এ বাল্য বিয়ের খবর ওই শিক্ষার্থী জানতে পেরে ওই প্রস্তাবকে সে প্রত্যাখান করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রোমন আকনের ছোট ভাই শামন আকন তার লোকজন নিয়ে গত মঙ্গলবার সকালে ওই শিক্ষার্থী প্রাইভেট পড়তে যাওয়া সময় তাকে কুপিয়ে জখম করে ফেলে রাখে। ওই শিক্ষার্থী শুকতারা গুরুতর আহত অবস্থায় বর্তমানে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এ দিকে তার উপর হামলার ঘটনার প্রতিবাদে আহত ছাত্রীর বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা থানার সামনের রাস্তায় এক মানবন্ধনের আয়োজন করে। পরে কালকিনি থানা পুলিশ এ কর্মসুচিতে বাধা প্রদান করেন। কিন্তু তা উপেক্ষা করে শিক্ষার্থীর উপজেলার প্রধান-প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস ঘেরাও করেন।
আহত শিক্ষার্থীর সহপাটি তাহিয়া, জতি. সাবিহা ও মুসলিমাসহ বেশ কয়েকজন জানায়, আমরা মানববন্ধ করলে প্রথমে পুলিশ আমাদের বাধা প্রদান করেন। পরে আমরা নির্যাতনকারীদের দ্রুত বিচার চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছি।
কালকিনি থানার ওসি মোঃ মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, আমরা শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য দায়িত্ব পালন করেছি। ইতিমধ্যে আমরা একজন আসামীকে গ্রেফতার করেছি।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম বলেন, দোষীদেরকে দ্রুত বিচারের আওতায় আনা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ