fbpx
25.6 C
Barisāl
Wednesday, April 21, 2021

গৌরনদীতে যুবদল নেতার ওপর ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হামলা পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম

গৌরনদী উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি মো. কামাল লস্কর (৪২)র ওপর গত বুধবার রাতে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কতিপয় নেতাকর্মি মটরসাইকেল বহর নিয়ে হামলা চালিয়ে রড দিয়ে পিটিয়ে জখম রক্তাক্ত করেছে। হাসপাতালে নেওয়ার পথে আহত যুবদল নেতার ওপর দ্বিতীয় দফায় হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গুরুতর অবস্থায় তাকে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, গৌরনদী উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি মো. কামাল লস্কর (৪২) বুধবার রাত ৭টার দিকে কাসেমাদ বাসস্ট্যান্ড ইদ্রিস সরদারের দোকানে চা পান করছিল। এ সময় ৬/৭টি মটরসাইকেলে যোগে ১২/১৪ জন সন্ত্রাসী উপস্থিত হয়ে আকস্মীকভাবে কামালের ওপর হামলা চালিয়ে রড দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করেছে। গৌরনদী উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি মো. কামাল লস্কর অভিযোগ করে বলেন, আমি মাগরিবের নামাজ আদায় করে ইদ্রিস সরদারের দোকানে চা পান করে আড্ডা দিচ্ছিলাম। এমন সময় ৮/১০টি মটরসাইকেলযোগে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের ১৫/২০ জন নেতাকর্মি কাঠের রুয়া, রড ও লাঠিসোটা নিয়ে আমার ওপর ঝাপিয়ে পরে আমাকে পেটাতে থাকে এক পর্যায়ে রড দিয়ে পিটিয়ে আমাকে রক্তাক্ত জখম করে মটরসাইকেল নিয়ে বীরদর্পে চলে যান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা জানান, হামলাকারীরা চলে যাওয়ার পরে তাকে উদ্ধার করে ভ্যানযোগে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রওয়ানা হয়ে হরিসোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে পৌছলে হাসপাতালে নিতে বাধা দেন এবং দ্বিতীয় দফায় হামলা চালানো হয়। এসময় ভ্যান চালক দুলাল সরদারকে মারধর করা হয়। পরে স্বজনারা তাকে উদ্ধার করে রাত ৯টার দিকে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক হামলা সম্পর্কে জানতে চাইলে গৌরনদী উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক সৈয়দ মাহাবুব আলম বলেন, হামলার সঙ্গে যুবলীগের কোন সম্পৃক্ততা নেই। যুবদলের দলীয় আভ্যন্তরীন কোন্দলের এ ঘটনা হয়ে থাকতে পারে। গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুনিরুল ইসলাম জানান, থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ