fbpx
25.3 C
Barisāl
Thursday, April 22, 2021

পানি উন্নয়ন বোর্ডের চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার বাগধা ইউনিয়ননের বাগধা মৌজার প্রায় কোটি মূল্যের ৪৩ শতাংশ জমি দখল করে বালু ভরাট শুরু করেন স্থানীয় প্রভাবশালী আব্দুর রশিদ খানের ছেলে ওবায়েদুল হক খান। ওই জমির ভরাট কাজ বন্ধ করে দেয়ায় দখলদার পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী, সহকারী প্রকৌশলী ও চার কর্মকর্তাসহ ৫ জনকে আসামী করে বরিশাল সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন। রোববার বাদী আদালতের মাধ্যমে মামলা প্রত্যাহার করে নেয়। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার বাগধা গ্রামের বাগধা মৌজার এসএ ৩৮নং খতিয়ানের এসএ -৬১৩৭ ও ৬১৬৭ নং দাগের ৪৩ শতাংশ জমি বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ড ১৯৭২ সালে সাতলা বাগধা প্রকল্পের অনুকূলে হুকুম দখল করেন। দীর্ঘদিন যাবত ওই জমি পরিত্যক্ত পরে ছিল। ওই জমির বাজার মূল্য প্রায় কোটি টাকা। হঠাৎ এ বছর ওই জমির ক্রয় সূত্রে মালিকানা দাবি করেন পশ্চিম বাগধা গ্রামের রশিদ খানের ছেলে ওবায়েদুল হক খান। বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)র গৌরনদী সার্কেলের সহকারী প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ড ৩৫ কোটি টাকা ব্যায়ে সাতলা বাগধা প্রকল্প উন্নয়নে একটি নতুন প্রকল্প গ্রহন করেন। প্রকল্পের জরিপ কাজে গিয়ে তিনি দেখেন তাদের জমি দখল করে বালু ভরাট করেছেন স্থানীয় প্রভাবশালী আব্দুর রশিদ খানের ছেলে ওবায়েদুল হক খান। এ সময় তিনি পুলিশের সহায়তায় ভরাট কাজ বন্ধ করে দেন। মামলা সূত্রে জানা গেছে কাজ বন্ধ করে দেয়ায় গত ২২ জানুয়ারি ওবায়েদুল হক খান বাদী হয়ে বরিশাল সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)র উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ ইরফান, গৌরনদী সার্কেলের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী করিম আলী, সার্ভেয়ার ফরিদ উদ্দিন ও উপজেলার পশ্চিম বাগধা গ্রামের হাবিব তালুকদারকে আসামি করে। বাদী মামলায় উল্লেখ করেন, গ্রামের রানা গাইন ও তার স্বজনদের কাছ থেকে ২০১৫ সালে জমি ক্রয় করেন। ভরাট করতে গেলে আসামিরা তার কাছে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন না দেয়ায় জমি ভরাট কাজ বন্ধ করে দেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ১ ফেব্রুয়ারি মামলা বাদী ওবায়েদুল হক খান মামলা প্রত্যাহারের জন্য আবেদন করেন। বাদীর আবেদনে প্রেক্ষিতে রোববার আদালতের বিচারক সৈয়দ এনায়েত হোসেন মামলা থেকে আসামীদের অব্যহতির নির্দেশ দেন।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ