fbpx
37.6 C
Barisāl
Wednesday, April 21, 2021

মাদক ব্যবসায় বাঁধা দেয়ায় বরিশালে মুক্তিযোদ্ধার পুত্রর রগ কর্তন

মাদক ব্যবসায় বাঁধা দেয়ায় মুক্তিযোদ্ধার পুত্রর পায়ের রগ কর্তনসহ এলোপাথারিভাবে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে। মুমূর্ষ অবস্থায় আওলাদ হোসেন লিটন খানকে (৩৭) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। লিটন খান জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার ভরপাশা গ্রামের প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা ও অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য আকবর আলী খানের পুত্র।
শুক্রবার সকালে লিটন খানের বৃদ্ধা মা আমেনা বেগম বাকেরগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে বলেন, ভরপাশা গ্রামের আল-আমিন হাওলাদার, শহিদ খান ও হুমায়ুন কবির খান দীর্ঘদিন থেকে এলাকায় ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য বিক্রি করে আসছে। অতিসম্প্রতি বিষয়টি জেনে তাদের মাদক ব্যবসায় বাঁধা প্রদান করেন লিটন খান। ফলশ্রুতিতে ওই মাদক ব্যবসায়ীরা অতিসম্প্রতি লিটনের মাছের ঘেরে বিষপ্রয়োগ করে প্রায় পাঁচ লক্ষাধিক টাকার মাছ মেরে ফেলে। এ ঘটনায় লিটন বাদি হয়ে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উল্লেখ করা হয়, গত ১৭ এপ্রিল রাত সাড়ে নয়টার দিকে লিটন খান তার চাচাতো ভাই ইসরাইল আলম দুলালকে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে কৃষ্ণকাঠী খানাবাড়ি নামক এলাকায় পৌঁছলে মাদক ব্যবসায়ী আল-আমিন হাওলাদার, শহিদ খান, মাসুম, মুসা খান ও হুমায়ুন কবিরসহ তাদের ১৪/১৫ জন সহযোগীরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়ে লিটনের পায়ের রগ কেটে ও শরীরের বিভিন্নস্থানে অর্তকিতভাবে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। স্থানীয়রা তাদের চিৎকারে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর অবস্থায় লিটনকে উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে আসার পর চিকিৎসকেরা উন্নত চিকিৎসার জন্য মুমূর্ষ অবস্থায় লিটনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় আমেনা বেগম বাদি হয়ে হামলাকারীদের নাম উল্লেখ করেন থানায় মামলা দায়ের করেছেন। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বৃদ্ধা আমেনা বেগম তার পুত্রকে হত্যার চেষ্ঠাকারীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারের জন্য প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ