fbpx
31.7 C
Barisāl
Tuesday, April 20, 2021

আগৈলঝাড়ায় কালের সাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে আছে ঐতিহাসিক ২২ হাত কবর।

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার বাকাল ইউনিয়নের যবসেন গ্রামে কালের সাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে আছে ‘মরহুম জমশের খাঁন’ এর ঐতিহাসিক ২২ হাত কবর। এ কবরটি একনজর দেখতে বহু দূর-দূরান্ত থেকে প্রতিদিন শতশত মানুষ ছুটে আসেন। তবে এ কবরটি ঠিক কত বছর আগের তা নিশ্চিত ভাবে কেউ বলতে না পারলেও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায় এ কবরটি আনুমানিক প্রায় ৫০০ বছরের পুরোনো। কিন্তু এই কবর স্থানে কোন লিখিত ফলক না থাকায় এর সঠিক ইতিহাস সর্র্ম্পকে তেমন কিছু জানা যায়নি। তবে স্থানীয়দের ধারণা ‘মরহুম জমশের খাঁন’ আনুমানিক প্রায় ৫০০ বছর পূর্বে তার গর্ভধারিণী মা ও স্ত্রী সহ ফরিদপুর শহর হতে বরিশাল জেলাধীন আগৈলঝাড়া উপজেলার বাকাল ইউনিয়নের যবসেন গ্রামে এসে বসতি গড়েন। তিনি ছিলেন প্রায় ১৮ হাত লম্বা শরীরের অধিকারী। তিনি আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা গ্রামের তৎকালীন জমিদার মোহন মুন্সি এর প্যাদা (লাঠিয়াল) হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন।
তিনি প্যাদা থাকার কারনে তাকে লোকজনে জমশের পাইক বলে ডাকত। তিনিই হলেন বর্তমান পাইক গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা। এ বিষয়ে স্থানীয়রা বলেন -‘মরহুম জমশের খাঁন’ এর কবরটি লোক মুখে ২২ হাত কবর বলে পরিচিত। কিন্তু মূল কবরটি মূলত ১৮ হাত। একজন ব্যাক্তির এত বড় লম্বা কবর বাংলাদেশের আর কোন এলাকায় আছে বলে আমাদের মনে হয় না। প্রতি বছর এখানে ‘মরহুম জমশের খাঁন’ এর স্মরণে ৩ দিন ব্যাপী ওয়াজ মাহফিল দেয়া হয়।
কিন্তু যথাযথ ভাবে সংরক্ষণ ও প্রচারের অভাবে এই কবরটি অবহেলিত ভাবে কালের সাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে আছে। তাই আমরা চাই এই কবরটি সরকারি ভাবে রক্ষণা-বেক্ষণ করা হোক, যাতে এই কবরটি এ অ লের একটি আকর্ষনীয় দর্শনীয় স্থান হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ