fbpx
26 C
Barisāl
Saturday, October 16, 2021

ভিজিএফ’র চাল আত্মসাতের ঘটনায় উত্তপ্ত উজিরপুর

বরিশালের উজিরপুরে ঈদ উপরক্ষে অসহায় দরিদ্রদের জন্য সরকারের বিশেষ বরাদ্দকৃত ভিজিএফের চাল আত্মসাতের ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। আতঙ্কে রয়েছে চেয়ারম্যানের বিচারের দাবীতে বিক্ষোভকারী শতাধিক সংখ্যালঘু পরিবার। এমনকি জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসন কোনো প্রকার ব্যবস্থা না নেয়ায় এালাকাবাসীর মাঝে তীব্র অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। জনমনে নানা ধরনের প্রশ্ন উঠেছে প্রশাসনের নীরব ভূমিকার রহস্য নিয়েও। তবে ওই এলাকার অধিকাংশ মানুষের দাবী চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু একজন প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা এবং সে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবালের ঘনিষ্ঠ সহচর। যার কারনে প্রশাসন তার বিরুদ্ধে তেমন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

সূত্র মতে, সরকারীভাবে ঈদুল আযহা উপলক্ষে জল্লা ইউনিয়নের দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফ’র প্রাপ্ত চাল না দিয়ে চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু নিজেই আত্মসাত করেন। ওই চাল বিক্রি করার জন্য পাচারের সময় গত ২৮ আগস্ট স্থানীয়রা হাতেনাতে আটক করে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্তদের কবল থেকে ২ হাজার ২৫০ কেজি ভিজিএফ’র চাল জব্দ করে ও ইউনিয়ন পরিষদের গুদাম সিলগালা করেন। তবে এ ঘটনার ছয় দিন অতিবাহিত হলেও রহস্যজনক কারণে উপজেলা প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় ওই ইউনিয়নের বাহেরঘাট গ্রামের বাসিন্দা এরশাদ হাওলাদার বাদী হয়ে বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় অভিযুক্তরা হচ্ছেন, ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিত হালদার নান্টু, ওএমএস ডিলার প্রিতম বিশ্বাস ও তাদের সহযোগী সুশান্ত হালদার, রমেশ বিশ্বাস, দুলাল বিশ্বাস।

বর্তমানে মামলাটি আদালতের নির্দেশে দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তদন্ত করছে। অভিযোগ রয়েছে মামলা দায়েরের পর থেকে বাদী এরশাদ হাওলাদারসহ তার পরিবারকে হত্যার অব্যাহত হুমকি দিয়ে আসছে চেয়ারম্যান ও তার সহযোগীরা। এদিকে ভিজিএফের চাল আত্মসাতকারী চেয়ারম্যানের অপসারনসহ তার সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গত মঙ্গলবার জল্লা ইউনিয়নে পৃথকভাবে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিক্ষুব্ধ ইউনিয়নবাসী। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই ইউনিয়নের একাধিক বাসিন্দা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, আমরা এখন সব সময় হামলা-মামলার আতঙ্কে রয়েছি। চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু এক সময়ের দাপুটে সর্বহারা নেতা এবং বর্তমানে ইয়াবা হোলসেলার। তার অনিয়ম-দূর্নীতির বিরুদ্ধে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বিক্ষোভ করলেও পুলিশ-প্রশাসন একদম নীরব। আমরা অতিদ্রুত ইয়াবার ডিলার ও চাল আত্মসাতকারী চেয়ারম্যানের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ