fbpx
31.6 C
Barisāl
Monday, June 21, 2021

ডাক্তার শূণ্য আগৈলঝাড়া উপজেলা ৫০ শয্যার হাসপাতাল।

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা ৫০ শয্যার হাসপাতাল এখন ডাক্তার শুন্য। ডাক্তার না থাকায় ভেঙ্গে পরেছে হাসপাতালের সাস্থ্য সেবা কার্যক্রম। একজন চিকিৎসক দিয়ে চলছে পুরো উপজেলার স্বাস্থ্য সেবা।
দুই লাখেরও বেশী জনসংখ্যা অধ্যুষিত বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা ও পাশ্ববর্তী গৌরনদী উপজেলার পশ্চিমাংশ, উজিরপুরের উপজেলার উত্তরাংশ ও কোটালীপাড়া উপজেলার পূর্বাংশের তিন লক্ষাধিক জনগন চিকিৎসা সেবা থেকে বি ত রয়েছে।
সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ৫০ শয্যার এ হাসপাতালটিতে ৫টি ইউনিয়ন স্বাস্থ্যসেবা (সাব সেন্টার)সহ ডাক্তারদের ২৬টি মঞ্জুরীকৃত পদ রয়েছে। তবে মঞ্জুরীকৃত ২২টি ডাক্তারের পদ শূণ্য রয়েছে। এদের মধ্যে মাত্র চার জন চিকিৎসক রয়েছে। হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা (ইউএইচএএফপিও) ডা. একেএম মনিরুল ইসলাম, আরএমও ডাঃ বখতিয়ার আল মামুন, মেডিকেল অফিসার ডাঃ জ্যোতি রানী বিশ্বাস, ডেন্টাল সার্জন ডাঃ মনন কুমার দেসহ ৪জন ডাক্তার বর্তমানে কর্মরত রয়েছেন। শূণ্য পদের মধ্যে রয়েছে একটি করে জুনিয়র কনসালটেন্ট (সার্জারি), জুনিয়র কনসালটেন্ট (মেডিসিন), জুনিয়র কনসালটেন্ট (গাইনী), জুনিয়র কনসালটেন্ট (চক্ষু: নব সৃষ্ট), জুনিয়র কনসালটেন্ট (ইএনটি: নবর্সসৃস্ট), জুনিয়র কনসালটেন্ট (কার্ডিওলজি), জুনিয়র কনসালটেন্ট (আর্থপেডিক্স), জুনিয়র কনসালটেন্ট পেডিয়েট্রিক; শিশু), জুনিয়র কনসালটেন্ট (চর্ম/যৌণ)। বর্তমানে সদ্যযোগদানকারী ইউএইচএএফপিও ডাঃ একেএম মনিরুল ইসলাম বেশি সময় ব্যস্ত থাকেন প্রশাসনিক কাজে। ডাঃ মনন ও ডাঃ জ্যোতি রানী বিশ্বাস মাঝে মাঝে হাসপাতালে আসলেও রোগীরা তাদের সেবা পায়না। শুধুমাত্র আরএমও ডাঃ বখতিয়ার আল মামুন সার্বক্ষনিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে চলছেন সাধারন জনগনের। ফলে একজন চিকিৎসক দিয়ে চলছে পুরো উপজেলার স্বাস্থ্য সেবা। ডাক্তার সংকটের কারনে জনগণ বি ত হচ্ছে মৌলিক অধিকার চিকিৎসাসেবা থেকে। এবিষয়ে ইউএইচএএফপিও ডাঃ একেএম মনিরুল ইসলাম জানান, ডাক্তার সংকটের বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ