fbpx
31.6 C
Barisāl
Monday, June 21, 2021

আগৈলঝাড়ায় জোড় করে মুখে বিষ ঢেলে গৃহবধূকে হত্যার চেষ্টা

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় জোড় করে মুখে বিষ ঢেলে এক সন্তানের জননী গৃহবধূকে হত্যার চেষ্টা চালায়, স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়ী, ভাশুর, জা ও তাদের পরিবারের লোকজন। ঘটনার বিবরণে জানাগেছে মঙ্গলবার রাতে আগৈলঝাড়া উপজেলার বাশাইল গ্রামে স্বামীর পরকীয়ায় আপত্তি করে স্ত্রী রুপা রানী বাড়ৈ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রুপার স্বামী পরনারী লিপ্সু, যৌতুক লোভী বাবু বাড়ৈ, বাবুর বাবা নিলকান্ত বাড়ৈ, মা আলো রানী বাড়ৈ, ভাশুর নরোত্তম বাড়ৈ, প্রবাসী ভাইয়ের স্ত্রী মন্দিরা বাড়ৈ মধ্যযোগীয় কায়দায় রুপা রানী বাড়ৈ (২২) কে মারধর করে। একপর্যায় হাত, পা চেপে ধরে জোড় পূর্বক রুপার মুখে বিষ ঢেলে দেয়। রুপা আত্মহত্যা করেছে বলে তার স্বজনদের কাছে জানায় শশুর বাড়ির লোকজন।

রুপাকে রাতেই আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অচেতন অবস্থায় ভর্তি করা হয়। রুপার পিত্রালয় একই উপজেলার মোল্লাপাড়া গ্রামে পিতা, মাতা স্বজনদের কাছে খবর দেওয়া হয় যে রুপা বিষপান করেছে। একাধীক সূত্র থেকে জানাগেছে, রুপার স্বামী বাবু ও তার পরিবারের লোকজন যৌতুক লোভী। রুপার পিতা বিনোদ মন্ডল মেয়ের সুখ শান্তির কথা ভেবে বিভিন্ন সময় জামাতা বাবুকে প্রায় ৩ লক্ষ টাকা দেয় ব্যবসা করার জন্য। ঐ টাকা সে নষ্ট করে ফেলে। রুপার বাবা বাবুকে একটি ঔষধ কোম্পানিতে চাকুরী যোগার করে দেয়। এর পরেও বাবু পুনরায় ১ লক্ষ টাকা দাবী করে রুপার পিতার কাছে। বাবু রুপার সংসারে এক শিশু কন্যা জন্ম নেয়। তার নাম তোরা বাড়ৈ বয়স ৯ মাস।

বিবাহের পূর্ব থেকেই বাবু পরকীয়া প্রেমে আসক্ত ছিল। এ থেকে সে এখনও বিরত হতে পারেনি। এ নিয়ে রুপা- বাবু দাম্পত্য জীবনে কলহ লেগেই আছে। প্রায়ই রুপাকে মারধর করে তার পিত্রালয়ে তাড়িয়ে দেওয়া হত। যা নিয়ে অনেকবার শালিশ মিমাংসা হয়েছে। সম্প্রতি রুপাকে পিত্রালয়ে তাড়িয়ে দিলে রুপার পিত্রালয়ের লোকজন ও বাবুর লোকজন বাবুর বাড়িতে বসে বৈঠক করে মিমাংসা করে দেয়। ১৫ দিন যেতে না যেতে এ ঘটনা বাবু পুনরায় ঘটায়। বাবুর পিতা, মাতা, ভাই, ভাইয়ের স্ত্রী, বাবুকে সবসময় উচকানি দিয়ে অশান্তি সৃষ্টি করছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানাগেছে।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ