fbpx
28.5 C
Barisāl
Monday, April 12, 2021

আগৈলঝাড়ায় বোর্ড ফি’র অতিরিক্ত অর্থ নিয়ে চলছে এসএসসির ফরম পুরণ

নিউজ ডেস্ক: বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের অধীনে আগৈলঝাড়া উপজেলার অধিকাংশ স্কুলে বোর্ড নির্ধারিত ফি’র চেয়ে অতিরিক্ত ফি আদায় করে চলছে ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফরম পুরণ। অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের ঘটনায় অভিভাবকদের মাঝে চরম ক্ষোভ দেখা দিলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন নিরব ভূমিকায় রয়েছে বলে জানা গেছে।
বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কর্তৃক স্বাক্ষরিত স্মারকে ধার্যকৃত বোর্ড ফি’র চেয়ে অতিরিক্ত ফি আদায় করা যাবে না জানিয়ে একপত্রে সকল বিদ্যালয় ও বোর্ডের ওয়েব সাইটে জানিয়ে দেন। উল্লেখিত পত্রে ফরম পুরনে বিজ্ঞান বিভাগে (নিয়মিত) ১৫৯৫ টাকা, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ১৫০৫ টাকা ধার্য করেন। এছাড়া বিজ্ঞান বিভাগে (অনিয়মিত) ১৮৮৫ টাকা ও মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ১৭৯৫ টাকা ধার্য করা হয়।
এদিকে উপজেলার স্কুল গুলোতে বের্ডের নির্দেশ অমান্য করে কোচিং ফি’র নামে ৫শ থেকে ১ হাজার টাকা, কোচিং চলাকালীন বেতন ৩শ টাকা, স্কুল উন্নয়ন ফি ২শ টাকা, সেশন ফি ১শ ২৫ টাকা, মিলাদ ১শ টাকা, ব্যবহারিক ৫০ টাকা, কেন্দ্র ফি ৩শ টাকা, পরীক্ষার সময় কেন্দ্রে শিক্ষকদের যাতায়াত ফি ১শ টাকা, স্কুলের চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীদের জন্য ৫০ টাকা, বিদ্যুৎ বিল ১শ টাকা, ক্রিড়া ফি ২শ টাকা ও অনলাইন ফি বাবদ ১শ টাকাসহ পরীক্ষার্থীদের স্কুলের বকেয়া বেতন ও টেস্ট পরীক্ষায় অকৃকার্য হওয়া প্রতিটি বিষয়ে ২শ থেকে ৫শ টাকা পর্যন্ত ধার্য করে আরও ২ হাজার টাকার উপরে যোগ করা হয়েছে। এরপর পরীক্ষার আগমুহুর্তে প্রবেশপত্র বিতরণের নামে হাতিয়ে নেয়া হবে আরও মোটা অংকের অর্থ।
সূত্রমতে, উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের স্কুলের বেতন ফ্রি হওয়ার নিয়ম থাকলেও তা মানছে না স্কুলগুলো। এমনকি টেস্ট পরীক্ষায় প্রতিটি বিষয়ে কৃতকার্য হওয়া পরীক্ষার্থীদের জন্যও ৩ হাজার টাকার উপরে ধার্য করেছেন প্রতিষ্ঠান প্রধানরা।
উপজেলায় হাতে গোনা কয়েকটি স্কুল বোর্ডের নির্দেশ কিছুটা মানলেও বেশিরভাগ স্কুল গুলোই তাদের ইচ্ছে মত ফি নিয়ে ফরম পুরণ করছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও বারপাইকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুনীল কুমার বাড়ৈ জানান, সমিতির সভায় বোর্ড ফি নিয়ে ফরম পুরণের সিদ্ধান্ত দেয়া হয়েছে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের যদি কোন বকেয়া থাকে তা স্কুল কর্তৃপক্ষকে আলাদাভাবে নেয়ার জন্য বলা হয়েছে, যা ফরম পুরনের সময় আদায় করা যাবে না। যদি কোন স্কুল সিদ্ধান্ত অমান্য করে তাদের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।
শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সাথে মির্টিং করে নির্ধারিত বোর্ড ফি নিয়ে ফরম পুরন করতে বলা হয়েছে। এক বিষয়ে অকৃতকার্যদের জন্য ১শ ১০টাকার বেশী নেয়া যাবে না। কয়েকটি স্কুলের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিনি।

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পর্কিত সংবাদ